এবার যেকোনবৈদ্যুতিক লোডকে আঙ্গুল দিয়েTouch করে নিয়ন্ত্রন করুন!

সবাই কেমন ? আজ আমি যেই টিউন উপহার দিব, আশা করি সকলের ভাল লাগবে। তবে যারা নতুন তাদের অনেক ভাল লাগবে। আজ আমি আঙ্গুল দিয়ে Touch করেযেকোন বৈদ্যুতিক লোডকে নিয়ন্ত্রনের ছোট একটা প্রজেক্ট উপহার দিবো। এটির মাধ্যমে আপনি লাইট, ফ্যান,সকেট, মটর বা যেকোন লোডকে Touch করে নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন। যাইহোক, যদি কেউ এই সার্কিটটি তৈরি করতে চান, তাহলে নিচের কম্পোনেন্টগুলো সংগ্রহ করুন:

  • ic1= CD4017 একটি।
  • একশ ওহমের রেজিস্ট্যান্স একটি।
  • দশ মেগাওহমের রেজিস্ট্যান্স একটি।
  • 390 ওহমের রেজিস্ট্যান্স একটি।
  • 120 ওহমের রেজিস্ট্যান্স একটি।
  • যেকোন কালারের led দুইটি।
  • যেকোন মানের রেকটিফায়ার ডায়োড একটি। আমি এখানে 1N4007 ব্যবহার করেছি।
  • যেকোন মানের NPN ট্রানজিস্টর একটি। আমি এখানে BC547 ব্যবহার করেছি।
  • যেকোন মানের PNP ট্রানজিস্টর একটি। আমি এখানে BC557 ব্যবহার করেছি।
  • 9 অথবা12 ভোল্টের রিলে একটি।
  • Touch Plate হিসাবে যেকোন কম্পোনেন্টের পা কে পাশাপাশি রাখবেন, যেন মাঝখানে আঙ্গুল রাখলে দুপাশেই যেন স্পর্শ করে। আমি এখানে Touch Plate হিসাবে দুটো রেজিস্ট্যান্সের পা ব্যবহার করেছি।
  • সার্কিটটির পাওয়ার সাপ্লাই হিসেবে 9 বা 12 ভোল্টের ব্যাটারি অথবা 9 বা 12 ভোল্টের ট্রান্সফরমার দিয়ে অ্যাডাপটার বানিয় ব্যবহার করতে পারবেন।

এবার নিচের ডায়াগ্রাম অনুযায়ী সংযোগ দিন।

TTC Tunes

ভেরোবোডে আমার সংযোগ করা সার্কিটটি দেখুন:

TTC Tunesএখন দুই পিনের মাঝখানে আঙ্গুল দিয়ে একবার Touch করলেই রিলে অন হবে আর পরের Touch এ রিলে অফ হয়ে যাবে।

যদি বুঝতে সমস্যা হয় তাহলে ফেজবুক থেকে rubelttc দিয়ে আমাকে ADD দিন ! আপনার সমস্যা দ্রুত সমাধানের চেষ্টা করবো ! সবাই ভাল থাকবেন !

মন্তব্য দিন

এবার অল্পখরচে নন কানেক্ট AC কারেন্টটেস্টার বানিয়ে নিন আর রিস্কছাড়াই কারেন্ট ও তারের ফল্ট চেককরুন।

সবাই কেমন ? আজ আমি যেই টিউন উপহার দিব, আশা করি সকলের ভাল লাগবে। তবে যারা নতুন তাদের অনেক ভাল লাগবে। আজ আমি দেখাবো কিভাবে কারেন্টের সাথে না লাগিয়ে ২-৩ ইঞ্চি দুর থেকে কারেন্ট টেস্ট করা যায় এবং কিভাবে তারের ফল্ট বের করে তার মেরামত করা যায়। এটির মাধ্যমে আপনি তারের কাভারের উপর দিয়েও কারেন্ট চেক করতে পারবেন।

যাইহোক, যদি কেউ এই সার্কিটটি তৈরি করতে চান, তাহলে নিচের কম্পোনেন্টগুলো সংগ্রহ করুন:

  • ic1= CD4017 একটি।
  • 330 ওহমের রেজিস্ট্যান্স একটি।
  • যেকোন কালারের led একটি।
  • Antena হিসেবে ৩-৫ ইঞ্চি তার ব্যবহার করবেন।
  • সার্কিটটির পাওয়ার সাপ্লাই হিসেবে 9 ভোল্টের Alkaline ব্যাটারি।

এবার নিচের ডায়াগ্রাম অনুযায়ী সংযোগ দিন।

TTC Tunesভেরোবোডে আমার সংযোগ করা সার্কিটটি দেখুন:

TTC Tunes

এখন Antena তারকে AC কারেন্টের কাছে নিয়ে গেলে LED জ্বলা নেভা করবে। যদি না করে তাহলে বুঝতে হবে লাইনে কারেন্ট নেই। এই একই পদ্ধতি কাজে লাগিয়ে আপনি যেকোন তারের ফল্ট বেড় করতে পারবেন। এজন্য আপনাকে তারের এক প্রান্তে কারেন্ট প্রবেশ করিয়ে ওই তারের উপর দিয়ে Antena এর তার নিয়ে যেতে হবে। যতদুর পর্যন্ত LED জ্বলানেভা করবে ততদুর পর্যন্ত তার ঠিক আছে। যেখানে LED অফ হয়ে যাবে বুঝবেন সেখানেই ফল্ট আছে। এবার কারেন্ট থেকে তার খুলে ওই অংশের মাঝখানে কেটে দুই দিক থেকে ৫-৮ ইঞ্চি তার বাদ দিয়ে জোরা দিন। এবার দেখুন তারের ফল্ট সেরে গেছে।

সর্তকতাঃ

  • Antena তারকে কখনো করেন্টের সাথে ঠেকাবেন না বা সংযুক্ত করবেন না।

যদি বুঝতে সমস্যা হয় তাহলে ফেজবুক থেকে rubelttc দিয়ে আমাকে ADD দিন ! আপনার সমস্যা দ্রুত সমাধানের চেষ্টা করবো ! সবাই ভাল থাকবেন !

বিঃদ্রঃ আমার এই তথ্যগুলো ভুল ধরার আগে, এই তথ্য অনুযায়ী কাজ করে দেখুন সফলতা পান কি না ! যদি না পান তাহলে অবশ্যই ফোনের মাধ্যমে আমাকে জানাবেন, সঠিক তথ্য কি হবে ! আমার মোবাইল নম্বর 8801716218847।
আর যদিকেউ কোন প্রজেক্ট কিনতে চান তাহলেও যোগাযোগ করতে পারবেন।

মন্তব্য দিন

রিলে সুইচ (ম্যাগনেটিক সুইচ) এরবিস্তারিত এবং সংযোগ প্রণালী।

আসসালামু-আলাইকুম। আমি মোঃ তাজউদ্দিন

চৌধুরী। ইলেকট্রনিক্স এর একজন ছাত্র। হয়ে

যান ইলেকট্রনিক্স এর মহাগুরু। যাদের

ইলেকট্রনিক্স সম্পর্কে আগ্রহ রয়েছে তাদের

জন্য আমি একেবারে শুরু থেকে সহজ ভাষায়

চেইন টিউন করছি। গত পর্বগুলোতে যারা

দেখেন নি তারা দেখে নিতে পারেন। গত পর্বে

আমরা ইলেকট্রনিক্স এর বহুল ব্যবহৃত কম্পোনেন্ট

ও এদের প্রতীক পরিচিতি সম্পর্কে আলোচনা

করেছিলাম। আমাদের আজকের বিষয়ঃ রিলে

সুইচ (ম্যাগনেটিক সুইচ) এর বিস্তারিত। আমি

কথা না বাড়িয়ে শুরু করছি।

টি টি তে রিলে নিয়ে অনেক টিউনস আছে।

আমি আরো একটু সহজ করে আমার ভাষায় বলছি।

বুঝতে সমস্যা হলে টিউমেন্টে জানাবেন।

রিলে বা ম্যাগনেটিক সুইচ হল এক প্রকার

অটোমেটিক সুইচ। এটি মূলত একটি সিঙ্গেল

পোল ডবল থ্রো সুইচ বা SPDT, চলুন রিলে সুইচের

চিত্রটি একটু দেখে নিই।

Read the rest of this entry »

১ টি মন্তব্য

সোল্ডারিং – কি, কেন, কিভাবে ও সঠিক পদ্ধতি

how to solder 2- tips and tricks_Amader Electroncis

সোল্ডারিং (Soldering) বা ঝালাই কি ?

সোল্ডারিং হল এমন একটি প্রক্রিয়া – যার মাধ্যমে দুই বা ততোধিক ধাতুকে  বা ইলেক্ট্রনিক্স কম্পোনেন্ট (Electronics Component) একে অপরের সাথে জোড়ক পদার্থ দ্বারা তাপ বা অন্যকোন বিশেষ শক্তি প্রয়োগ করে জোড়া দেওয়া হয়
[ বিস্তারিত পড়ুন ]

মন্তব্য দিন

::::আসুন নিজেই বানাই মাল্টি রেগুলেটেড পাওয়ার সাপ্লাই সার্কিট :::::

আসসালামু আলাইকুম, আজকে আপনাদের
সঙ্গে আমি শেয়ার করবো যে কিভাবে
আমরা খুব সহজ পদ্ধতিতে একটি মাল্টি
রেগুলেটেড পাওয়ার সাপ্লাই সার্কিট তৈরি
করতে পারি ।

অনেক সময় দেখা যায় আমরা একটা সার্কিট তৈরি
করলাম যার সাপ্লাই ভোল্টেজ ৫ ভোল্ট কিন্তু
আমার ট্রান্সফরমার এর আউটপুট এ আছে ১২
ভোল্ট বা ৯ ভোল্ট বা ৬ ভোল্ট আর এই
ক্ষেত্রেই আমরা সবথেকে বড় সমস্যার
সম্মুখীন হই আর এই সময় যদি আমার একটি মাল্টি
রেগুলেটেড পাওয়ার সাপ্লাই বানানো থাকে
তাহলে আমি খুব সহজেই সার্কিটটি পরীক্ষা
করতে পারবো । যাই হোক অনেকক্ষন
ফালতু প্যাচাল পারলাম এখন আমরা সরাসরি টিউন শুরু
করবো……………

প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি :
১২ ভোল্ট সেন্টার ট্যাপ ট্রান্সফরমার –
১টি
ডায়োড – ২টি
৯ভোল্ট রেগুলেটর – ১টি
৬ ভোল্ট রেগুলেটর – ১টি
৫ ভোল্ট রেগুলেটর – ১টি
৪৭০ মাইক্রোফ্যারাড ৩৫ ভোল্ট
ক্যাপাসিটর – ২টি
২২০০ মাইক্রোফ্যারাড ৩৫ ভোল্ট
ক্যাপাসিটর – ১টি
১০০০ মাইক্রোফ্যারাড ক্যাপাসিটর – ১টি
২২০ মাইক্রোফ্যারাড ক্যাপাসিটর – ১টি
২২০ ওহম রেজিস্টর – ১টি
৩ ভোল্ট জেনার ডায়োড – ১টি

image

এরপর উপরের চিত্রের মত করে সংযোগ
করুন ।

নবীন হবিস্টদের হয়তো রেগুলেটর এর পা
নিয়ে একটু সমস্যা থাকতে পারে, তাই আমি
রেগুলেটর এর পায়ের ব্যাপারটাও ক্লিয়ার করে
দিচ্ছি জাস্ট ওয়েট , রেগুলেটরের ৩টি পা
থাকে , ১ম পা হচ্ছে ইনপুট, ২য় টা গ্রাউন্ড এবং
৩য় পা হচ্ছে আউটপুট এখনও হয়তো বলবেন
যে আমরা কিভাবে পাগুলো কে চিনতে
পারবো ??

হ্যা এতকিছু যেহেতু চিনতে পেরেছেন
তো রেগুলেটর এর পা চিনতেও সময় লাগবে
না : )

image

উপরের চিত্রের মত রেগুলেটরকে সোজা
করে ধরলে একদম বাম পাশের পা হবে ১ম পা
এরপরে যথাক্রমে ২য় এব ৩য় পা……………… আশা
করি সার্কিট টা সম্পূণ ভালো ভাবে বুঝতে
পেরেছেন তারপরেও যদি কোন সমস্যা হয়
তাহলে কমেন্ট বক্সতো খোলাই আছে
আর আমার এই টিউন থেকে যদি আপনাদের
একবিন্দু ও উপকার হয় তবে আমার এই টিউন
সার্থক হবে …………

ও হ্যা আরেকটা কথা এইটা আমার লাইফের ফাস্ট
টিউন জানি হয়তো অনেক ভুল হইছে বা লিখাটা
অনেক বোরিং হইছে , আশা করি সবাই নতুন
টিউনার হিসেবে ক্ষমার দৃষ্টিতে
দেখবেন………………

নতুন নতুন প্রযুক্তির খবরা খবর জানতে ঘুরে
আসতে পারেন আমাদের পেজ
Electronics Technology থেকে ।

১ টি মন্তব্য

%d bloggers like this: